নিউজ পোর্টাল । বাংলাদেশ সাংবাদিক জোট
ফোকাস নিউজ সারাদেশ

কুড়িগ্রামে পুলিশের হাতে গাজাসহ আটককৃত আসামীর মৃত্যু

Kurigram-Police-Custody-Death-photo--03.02

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:
কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার শিলখুড়ি ইউনিয়নে পুলিশের হাতে গাজাসহ আটক মোজাফফর (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। নিহত যুবক উপজেলার উত্তর ছাটগোপালপুর গ্রামের আব্দুল ওয়াবের পূত্র।

ঘটনাটি স্বাভাবিক মৃত্যু নাকি অস্বাসাভাবিক মৃত্যু; এনিয়ে অভিযোগ ওঠায় পুলিশ সুপার ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছেন।

জানা গেছে, নিহত মোজাফফর ব্যাটারীচালিত অটো চালক। তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পরলে অটোচালকরা সমবেত হয়ে সোমবার দুপুর দুইটার দিকে ঢলডাঙ্গা এলাকায় বিক্ষোভ-সমাবেশ কর্মসূচি পালন করে। এসময় অটোচালক আমজাদের পূত্র ইউসুফ ও নিহতের বড় ভাই আব্দুর রউফ অভিযোগ করেন পুলিশের অবহেলায় মোজাফফরকে জীবন দিতে হল। মোজাফফর শ্বাসকষ্টসহ যক্ষ্মারোগে আক্রান্ত হলেও পুলিশ তা আমলে নেয়নি। শুধু তাই নয় থানায় অসুস্থ্য হয়ে পরলে তাকে অনেক বিলম্বে রোববার রাতে ভূরুঙ্গামারী হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে ডাক্তারের পরামর্শ উপেক্ষা করে মাত্র ১৫ মিনিট প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আবার থানায় তাকে নিয়ে আসা হয়। দ্বিতীয় দফায় থানায় অসুস্থ্য হয়ে পরলে তাকে রাত সাড়ে ১২টায় আবারো ভূরুঙ্গামারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভুরুঙ্গামারী হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মোজাফফরকে দ্রুত উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ দিলেও পুলিশ কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে সোমবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান জানান, তিনি ঘটনাটি জেনেছেন। নিহতের ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের কোন দায়বদ্ধতা আছে কিনা তা তদন্তে ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নিহত মোজাফফরের শশুর ইছব আলী ও শ্যালক সোহেল রানা সোমবার দুপুরে জানান, আমরা রাতে তার আটকের খবর শুনি। পরে তার মৃত্যুর খবর পেয়ে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে দেখতে এসেছি। কিভাবে কি ঘটেছে তা আমাদের জানা নেই।

ভূরুঙ্গামারী থানার এসআই আউয়াল জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার সন্ধ্যায় আমিসহ একদল টহল পুলিশ উপজেলার শিলখুড়ি ইউনিয়নের ঢলডাঙ্গা ঝালবাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করি। এসময় পুলিশ সন্দেহজনক একটি অটোরিক্সা থামাতে বললে রিক্সার ভিতর থেকে একজন যাত্রী ছুটে পালিয়ে যায়। পরে অটোরিক্সাচালক মোজাফফরকে আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে সিটের নীচে সাড়ে ৩ কেজি গাজাসহ তাকে রাত ৮ টার দিকে থানায় নিয়ে আসা হয়। থানায় আসার পর সে অসুস্থ্য হয়ে পরলে তাকে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ভূরুঙ্গামারী হাসপাতাল কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাত সাড়ে তিনটের দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ভূরুঙ্গামারী হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: সিরাজুল ইসলাম জানান, পুলিশ রাত সাড়ে ১১টায় মোজাফফর নামে এক যুবককে হাসপাতালে ভর্তি করে। সে মারাত্মক শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছিল। এছাড়াও যক্ষ্মাসহ অন্যান্য রোগে ভুগছিলেন। প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পনের মিনিট পরেই পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১২টায় আবারো গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। আমরা উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার জন্য পরামর্শ দেই।

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: রেদওয়ান ফেরদৌস সজীব জানান, তাকে মৃত: অবস্থায় রাত সাড়ে ৪টায় হাসপাতালে নিয়ে আসে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ।

ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির জানান, আটককৃত যুবক এলাকার চিহ্নিত মাদকসেবী এবং মাদক পাচারকারী। এছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে সে শ্বাসকষ্ট ও যক্ষ্মা রোগে ভূগছিল। আটকের পর থেকে সে অসুস্থ্যতা বোধ করছিলেন। আমরা তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়েছি। এ ব্যাপাওে পুলিশের কোন অবহেলা বা গাফিলতি ছিল না।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদ্য পুলিশ সুপার পদোন্নতিপ্রাপ্ত ) মেনহাজুল আলম জানান, তিনি সোমবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় নিহতের পরিবার, আত্মীয়স্বজন, ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্ববার এবং সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকের সাথে কথা বলেছেন। এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যে সবাই নিশ্চিত করছেন নিহত মোজাফ্ফর যক্ষ্মা ও শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে আক্রান্ত ছিল।

এই সংক্রান্ত আরও খবর

সাতক্ষীরায় একই পরিবারের ৪ জনের লাশ উদ্ধার

shahadat

টাঙ্গাইলে গণধর্ষণের দায়ে ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

shahadat

বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ৩ কোটি ৭৭ লাখ

shahadat

রেলক্রসিংয়ে ট্রেন-বাস সংঘর্ষে ৩ জনের মৃত্যু

shahadat

বৈরুতে ফের বিস্ফোরণ, নিহত ৪ আহত ২০

shahadat

হচ্ছে না এইচএসসি, জেএসসি-এসএসসি পরীক্ষার ফল দিয়ে মূল্যায়ন

shahadat