নিউজ পোর্টাল । বাংলাদেশ সাংবাদিক জোট
জাতীয় ফোকাস নিউজ

মেজর সিনহা হত্যা : ওসি প্রদীপসহ ৮ আসামির আত্মসমর্পন, জামিন নামঞ্জুর

নিউজ ডেস্ক:
সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানকে গুলি করে হত্যার মামলায় টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলিসহ আট আসামিকে কক্সবাজারের আদালতে হাজির করা হয়েছে।

প্রদীপকে নিয়ে পুলিশ চট্টগ্রামে থেকে বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টার দিকে কক্সবাজারের বিচারিক হাকিম আদালত প্রাঙ্গণে পৌঁছায়। তার আগেই বিকাল পৌনে ৪ টার দিকে পরিদর্শক লিয়াকতসহ বাকি সাতজনকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়।

আসামি পুলিশ সদস্যদের আদালতে হাজির করার আগে পুরো এলাকায় নেওয়া হয় ব্যাপক নিরাপত্তা। সাংবাদিকদের পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক উৎসুক জনতা ওই নিরাপত্তার মধ্যেও আদালত প্রাঙ্গণে ভিড় করেন।

আদালতে আত্মসমর্পণের আনুষ্ঠানিকতা এবং অন্যান্য আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাদের হস্তান্তর করা হবে র‌্যাবের হাতে। র‌্যাবকেই এ মামলার তদন্তভার দিয়েছে আদালত।

টেকনাফের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহার মৃত্যুর ঘটনায় তার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস যে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন, তাতে লিয়াকতকে ১ নম্বর এবং প্রদীপকে দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে।

শারমিন বুধবার সকালে টেকনাফের বিচারিক হাকিম আদালতে মোট ৯ জনকে আসামি করে ওই মামলা করার পর বিকালে টেকনাফ থানা থেকে ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে প্রত্যাহার করা হয়। পরিদর্শক লিয়াকত আলিসহ ২০ পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনসে পাঠানো হয় দুদিন আগেই।

বৃহস্পতিবার দুপুরে খবর আসে, পরিদর্শক প্রদীপকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে চট্টগ্রামের পুলিশ। এরপর তাকে নিয়ে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হয় কয়েকটি গাড়ি।

চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান দুপুরে বলেন, “চট্টগ্রামের দামপাড়া বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে এসেছিলেন প্রদীপ কুমার দাশ। তাকে এখন পুলিশ হেফাজতে কক্সবাজারে নেওয়া হচ্ছে। তিনি যেহেতু মামলার আসমি, তিনি সেখানে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন।”

জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তামান্না ফারাহ বুধবার হত্যা মামলাটি আমলে নিয়ে টেকনাফ থানাকে অভিযোগটি এজাহার হিসেবে গ্রহণের নির্দেশ দেন। পাশাপাশি মামলার তদন্তভার দেন র‌্যাবকে।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টায় টেকনাফ থানায় মামলাটি নথিভুক্ত করা হয় বলে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ বিএম মাসুদ হোসেন জানান।

তবে র‌্যাব বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত মামলার নথিপত্র বুঝে পায়নি জানিয়ে কক্সবাজারের র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ বলেন, “দায়িত্ব বুঝে পেলে নিয়ম অনুযায়ী আমরা কাজ শুরু করব।”

এই সংক্রান্ত আরও খবর

জনকণ্ঠের চাকরিচ্যুত সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা বাংলাদেশ সাংবাদিক জোটের

shahadat

বাংলাদেশ সাংবাদিক জোটের ‘বাসাজ সম্মাননা ও পুরস্কার ২০১৯’ বিতরণ

shahadat

দালালি ভুলতে পারেনি বলেই বঙ্গবন্ধুর ভাষণে ‘কিন্তু’ খোঁজে বিএনপি

shahadat

ধর্ষণের শিকার নারীর ছবি-পরিচয় প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা

shahadat

বাংলাদেশ সাংবাদিক জোটের গাজীপুর জেলা শাখার পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

shahadat

বাসাজ সম্মাননা স্মারক-২০১৯ এর প্রতিবেদনসমূহ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজার নিকট হস্তান্তর

shahadat

Leave a Comment